উপজেলা ভূমি অফিস, সাঁথিয়া, পাবনা ।

নোটিস বোর্ড

    No result found!
All Notice

বিভাগীয় কমিশনার মহোদয়ের বাণী

Dvision_comisiner sir

মোঃ আব্দুল হান্নান

বর্তমান সরকার ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ বিনির্মাণ ও ‘ভিশন-২০২১’ রূপায়নে বদ্ধপরিকর। এ লক্ষ্যকে সামনে রেখে সরকারি কর্মকাণ্ডে প্রযুক্তির সবোর্চ্চ ব্যবহার নিশ্চিতকরণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিবিড় তত্ত্বাবধানে একসেস টু ইনফরমেশন (a2i) প্রকল্পসহ সরকারের বিভিন্ন যুগোপযোগী প্রকল্প নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। ফলে সরকারি কর্মকর্তাদের মাঝে প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে উদ্ভাবনী শক্তির বিকাশ ও নিরঙ্কুশ কর্মস্পৃহার প্রকাশ ঘটছে। ভূমি খাতকে মানসম্মত পর্যায়ে উন্নীত করতে রাষ্ট্রীয়ভাবে অনেক ইতিবাচক উদ্যোগের পাশাপাশি বিভিন্ন স্থানে নিজ উদ্যোগে কতিপয় সহকারি কমিশনার (ভূমি) নিজ নিজ অফিস ডিজিটাইজেশনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন মর্মে আমি জ্ঞাত হয়েছি। এরই ধারাবাহিকতায় পাবনা সদর উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি) তার নিজ অফিসে এপ্লিকেশন-বেইজড ওয়েবসাইট ও অনলাইন মেসেজিং চালু করেছে জেনে আমি অত্যন্ত আনন্দিত। ভূমি খাতে জনসেবা প্রদান সহজীকরণের মাধ্যমে সাধারণ জনগণের হয়রানি লাঘবের পাশাপাশি স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতামূলক একটি রাজস্ব ব্যবস্থাপনা নিশ্চিতকরণে এপ্লিকেশন-বেইজড ওয়েবসাইট ও অনলাইন মেসেজিং এর গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা প্রশ্নাতীত। প্রযুক্তির উৎকর্ষ ও উদ্ভাবনী শক্তির সম্মিলন ঘটিয়ে এ ধরনের যুগোপযোগী প্রয়াস নিঃসন্দেহে শুধু ভূমি সংক্রান্ত সকল কর্মকাণ্ডকে নয় সরকারি সকল কর্মকাণ্ডকেও ত্বরান্বিত করবে বলে আমার বিশ্বাস। ফলে ভূমি ব্যবস্থাপনার সুফল পৌঁছাবে সাধারণ মানুষের ঘরে ঘরে, নিশ্চিত হবে জনগণের দোড়গোড়ায় সেবা পৌঁছে দেয়া। ভূমি ব্যবস্থাপনার মতো একটি জটিল ও ব্যাপক বিষয়কে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়ার অভিপ্রায়ে পাবনা সদর উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি)-র উদ্ভাবনীমূলক প্রচেষ্টাকে আমি আন্তরিক সাধুবাদ জানাই। পরিশেষে এ উদ্ভাবনের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে আমার আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করছি।

বিভাগীয় কমিশনার মহোদয়ের বাণী

Dvision_comisiner sir

মোঃ আব্দুল হান্নান

বর্তমান সরকার ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ বিনির্মাণ ও ‘ভিশন-২০২১’ রূপায়নে বদ্ধপরিকর। এ লক্ষ্যকে সামনে রেখে সরকারি কর্মকাণ্ডে প্রযুক্তির সবোর্চ্চ ব্যবহার নিশ্চিতকরণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিবিড় তত্ত্বাবধানে একসেস টু ইনফরমেশন (a2i) প্রকল্পসহ সরকারের বিভিন্ন যুগোপযোগী প্রকল্প নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। ফলে সরকারি কর্মকর্তাদের মাঝে প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে উদ্ভাবনী শক্তির বিকাশ ও নিরঙ্কুশ কর্মস্পৃহার প্রকাশ ঘটছে। ভূমি খাতকে মানসম্মত পর্যায়ে উন্নীত করতে রাষ্ট্রীয়ভাবে অনেক ইতিবাচক উদ্যোগের পাশাপাশি বিভিন্ন স্থানে নিজ উদ্যোগে কতিপয় সহকারি কমিশনার (ভূমি) নিজ নিজ অফিস ডিজিটাইজেশনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন মর্মে আমি জ্ঞাত হয়েছি। এরই ধারাবাহিকতায় পাবনা সদর উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি) তার নিজ অফিসে এপ্লিকেশন-বেইজড ওয়েবসাইট ও অনলাইন মেসেজিং চালু করেছে জেনে আমি অত্যন্ত আনন্দিত। ভূমি খাতে জনসেবা প্রদান সহজীকরণের মাধ্যমে সাধারণ জনগণের হয়রানি লাঘবের পাশাপাশি স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতামূলক একটি রাজস্ব ব্যবস্থাপনা নিশ্চিতকরণে এপ্লিকেশন-বেইজড ওয়েবসাইট ও অনলাইন মেসেজিং এর গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা প্রশ্নাতীত। প্রযুক্তির উৎকর্ষ ও উদ্ভাবনী শক্তির সম্মিলন ঘটিয়ে এ ধরনের যুগোপযোগী প্রয়াস নিঃসন্দেহে শুধু ভূমি সংক্রান্ত সকল কর্মকাণ্ডকে নয় সরকারি সকল কর্মকাণ্ডকেও ত্বরান্বিত করবে বলে আমার বিশ্বাস। ফলে ভূমি ব্যবস্থাপনার সুফল পৌঁছাবে সাধারণ মানুষের ঘরে ঘরে, নিশ্চিত হবে জনগণের দোড়গোড়ায় সেবা পৌঁছে দেয়া। ভূমি ব্যবস্থাপনার মতো একটি জটিল ও ব্যাপক বিষয়কে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়ার অভিপ্রায়ে পাবনা সদর উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি)-র উদ্ভাবনীমূলক প্রচেষ্টাকে আমি আন্তরিক সাধুবাদ জানাই। পরিশেষে এ উদ্ভাবনের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে আমার আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করছি।